Download http://bigtheme.net/joomla Free Templates Joomla! 3
Home / পরামর্শ / দৈনিন্দন জীবনে হলুদের কিছু কার্যকারী ব্যবহার

দৈনিন্দন জীবনে হলুদের কিছু কার্যকারী ব্যবহার

****হলুদের অসাধারণ কিছু কার্য ক্ষমতা

মসলাজাতীয় ফসলের তালিকায় শীর্ষ ব্যবহারযোগ্য ফসলের মধ্যে হলুদ অন্যতম। কাঁচা হলুদ থেকে শুরু করে গুঁড়া হলুদের ব্যবহার ব্যাপক।
হলুদের মধ্যে প্রোটিন, ভিটামিন, খনিজ লবণ, ফসফরাস, ক্যালসিয়াম, লোহা প্রভৃতি নানা পদার্থ রয়েছে। তাই হলুদ খেলে শরীরে রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। তা ছাড়াও
হলুদে প্রচুর পরিমাণ অ্যান্টি অক্সিডেণ্ট, অ্যান্টিভাইরাল, অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল, অ্যান্টিকারসিনোজেনিক, অ্যান্টি ইনফ্লামেটরি , ফাইবার, পটাশিয়াম, ভিটামিন বি-৬, ম্যাগনেশিয়াম ও ভিটামিন সি থাকে ও কারকিউমিন নামক রাসায়নিক থাকে যা বিভিন্ন রোগের হাত থেকে আমাদের বাঁচায়।

১। খাদ্য সংক্রমণ থেকে বাঁচতে হলুদের ব্যবহারঃ-

হলুদে কারকিউমিনের অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি ও অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট উপাদান থাকায় তা বিভিন্ন ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণ থেকে খাদ্যনালীকে বাঁচায়। আমরা রোজ যে খাবার খাই, তার মধ্যে অনেকসময়ই নানা জীবাণু থেকে যেতে পারে। খাবারে কাঁচা হলুদ বা হলুদ গুঁড়ো ব্যবহার করলে তা খাদ্যনালীকে ক্ষতিকারক জীবাণুর সংক্রমণ থেকে বাঁচায় ও খাদ্যনালীর প্রদাহের সম্ভাবনা কমায়।

২। স্ট্রোক এরাতে কাঁচা হলুদের ব্যবহারঃ-

নিয়মিত কাঁচা হলুদ খেলে স্ট্রোকের সম্ভাবনাকে অনেকটা কমিয়ে দিতে পারে। কাঁচা হলুদ হার্টকেও বিভিন্ন ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা করে থাকে। কাঁচা হলুদের অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট ও অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি গুণ স্ট্রোকের পরবর্তী চিকিৎসাতেও অনেক উপকার দেয়।
এছাড়া অপারেশনের পরে যে হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা থাকে, তাকেও কাঁচা হলুদ কমাতে সাহায্য করে।

৩। ধূমপান বা মদ্যপান জনিত ক্ষতি থেকে বাঁচতে কাঁচা হলুদের ব্যবহারঃ-

নিয়মিত ধূমপান বা মদ্যপান করার ফলে যে গ্যাস্ট্রিকের প্রদাহ, মস্তিস্ক ও ফ্যাটি লিভার ডিসিস হয়, তার থেকে বাঁচতে কাঁচা হলুদ আমাদের সাহায্য করে। প্রায় ৭৮.৯ শতাংশ ফ্যাটি লিভার ডিসিস নিয়মিত কাঁচা হলুদ খাওয়ার ফলে কমে যায়।

৪। ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিতে হলুদ এর ব্যবহারঃ-

প্রতিদিন রাতে ঘুমানোর আগে দুধের সাথে কাঁচা হলুদ মিশিয়ে খেলে, ধীরে ধীরে ত্বকের রঙ ফর্সা হয়। এ ছাড়াও হলুদ রক্ত পরিষ্কার করে, ত্বককে ভেতর থেকে সুন্দর করে। তাছাড়াও সকালে ঘুম থেকে উঠে কাঁচা হলুদের রস খেলেও অনেক উপকারিতা পাওয়া যায়।

৫। মুখের ব্রণ দূর করতে হলুদের ব্যবহারঃ-

যারা ব্রণের সমস্যায় ভুগছেন তাদের জন্য কাঁচা হলুদ দারুণ উপকারী একটি জিনিস। কাঁচা হলুদ বাটা, আঙ্গুরের রস ও গোলাপ জল মিশিয়ে ব্রনের উপরে লাগান। ২/৫ মিনিট পরে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে কয়কদিন ব্যবহার করুন। দেখবেন ধীরে ধীরে ব্রণ মিলিয়ে যাবে এবং ইনফেকশনেরও ভয় থাকবে না ।

৬। হলুদ ক্যানসার প্রতিরোধে সাহায্য করেঃ-

ক্যানসারের মত জটিল রোগ রোধ করতে হলুদ অনেক বেশি কার্যকরী। ক্যানসারের কোষের বৃদ্ধি এবং ছড়িয়ে পড়া রোধে হলুদ সাহায্য করে। বিশেষজ্ঞরা বলেন, এটি মুখগহ্ববরের ক্যানসার রোধ করে থাকে।

৭।  হলুদ মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতাকে ভালো রাখেঃ-

বিডিএনএফ হরমোন অথবা ব্রেন-ডিরাইভড নিউরোট্রোপি মস্তিষ্কে নিউরোনের ভাগ এবং সংখ্যা বৃদ্ধিতে কাজ করে। বয়স বাড়ার সাথে সাথে মস্তিষ্কের কার্যকারিতা কমে যায়। যদি খাদ্যতালিকায় হলুদ থাকে, এই হরমোনের নিঃসরণ বেড়ে যায়। এবং এটি মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা বাড়াতে কাজ করে, স্মৃতিশক্তি এবং বুদ্ধি বাড়াতে সাহায্য করে।

৮। হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে হলুদের ব্যবহারঃ-

রক্তনালীর অভ্যন্তরীণ কার্যক্রম ক্ষতিগ্রস্ত হলে রক্তচাপ অনিয়ন্ত্রিত হয়, এতে হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়ে। হলুদ রক্তনালীর কার্যক্রম সচল রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। এর ফলে হৃদরোগের ঝুঁকি কমে।

৯। চর্ম রোগে হলুদের ব্যবহারঃ-

যেকোনো চর্ম রোগের জন্য হলুদ অনেক উপকারী। কাঁচা হলুদের সাথে কাঁচা দুধ মিশিয়ে শরীরে মাখলে একজিমা, অ্যালার্জি, র্যাশ, চুলকানি ইত্যাদি থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

***** কাঁচা হলুদ একটি প্রাকৃতিক এন্টিসেপ্টিক। তাই কাঁটা এবং পোড়া জায়গায় হলুদ বাটা লাগালে অনেক উপকার পাওয়া যায় ও তাড়াতাড়ি ব্যথা এবং দাগের উপশম ঘটে।

Comments

About Admin Md. Lokman Hossen

আমার এ প্রেম নয় তো ভীরু, নয় তো হীনবল - শুধু কি এ ব্যাকুল হয়ে ফেলবে অশ্রুজল। মন্দমধুর সুখে শোভায় প্রেম কে কেন ঘুমে ডোবায়। তোমার সাথে জাগতে সে চায় আনন্দে পাগল।

Check Also

Beautiful img

ত্বকের উজ্জ্বল বৃদ্ধিতে মধুর ব্যবহার

*মুখের সৌন্দর্য বাড়াতে মধুর ব্যবহার অতুলনীয়* মধু আমাদের প্রাকৃতিক সম্পদ।মধু আমাদের অনেক কাজে লাগে। মধুর …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *